You are here
Home > Blog > Winner Takes it All: How Markets Favor the Few at the Expense of the Many

Winner Takes it All: How Markets Favor the Few at the Expense of the Many

Spread the love

It’s a summary of a blog entry, which you can get in fs.blog.

প্রথমে বলি উইনার কাদেরকে বলা হচ্ছে- প্রতিটা সেক্টরের যারা সেরা, যারা অলরেডি তাদের ব্র‍্যান্ড ভ্যালুটা ক্রিয়েট করে ফেলেছে তারাই প্রকৃতপক্ষে সেই সেই সেক্টরের উইনার।

যেমন – ফুড সেক্টরে কেএফসি,বার্গার কিং, চেইন শপ ওয়ালমার্ট, টেকনোলজিতে মাইক্রোসফট, স্যামসাং, পোশাকশিল্পে ডেনিম, আমাদের দেশে আড়ং, ইন্টারনেট জগতে গুগল, অনলাইন মার্কেটপ্লেস আমাজন, আলিবাবা… এই সবগুলো হচ্ছে নিজ নিজ সেক্টরের সেরা।

প্রকৃত উইনার যারা তারা আসলে অনেক পরিশ্রম,অনেক সময়, অনেক টেকনিকাল স্কিল ব্যয়ের পরই তাদের শীর্ষস্থান অধিকার করেছে, যা চাইলেই সহজে কেউ টপকাতে পারেনা। মানুষের আস্থাও এদের উপর বেশি থাকে।
শীর্ষস্থানীয় ব্র‍্যান্ডগুলোই তাই পুরো মার্কেট দখল করে থাকে, ম্যাক্সিমাম শেয়ার থাকে তাদের দখলে।

সত্যিকার অর্থে সম্পদের সুষম বন্টন কখনো হয় না। কিছুসংখ্যক মানুষ, কিছু প্রতিষ্ঠান শীর্ষস্থান লাভ করে।
যেমন,

অনেক ভালো লেখক থাকলেও বইমেলায় রকিব হাসান, হুমায়ুন আহমেদ আর জাফর ইকবাল স্যারের বই ই বেশি বিক্রি হয়।

টপলিস্টের ওয়েবসাইটগুলোতেই বেশি মানুষ ভিজিট করে।

জার্নালগুলো কিছুসংখ্যক রিসার্চারের পেপারই সাজেস্ট করে।

যে সব লিংকে ক্লিক বেশি হয়েছে সেসব লিংকে সার্চ লিস্টের উপরে শো করে।

প্যারেটো প্রিন্সিপাল অনুসারে বিশ্বের ২০ ভাগ মানুষের কাছেই বিশ্বের ৮০ ভাগ সম্পদ।

প্রকৃত উইনাররা হয়ত খুব অল্প ব্যবধানে জিতে গেছে, তবুও সে উইনার। পুরো মিডিয়ার দৃষ্টি তার দিকেই থাকবে, তাকেই সবাই প্রমোট করবে, স্পনসর করবে। হয়ত অনেকেই প্রায় কাছাকাছি পারফরমেন্স করছে, অনেক চেষ্টা করছে তবুও হয়ত উইনিং পজিশনটা পাচ্ছেনা। একজন ব্রোঞ্জ মেডেলিস্টের চেয়ে চাই একজন গোল্ড মেডেলিস্ট ১০গুন বেশি উপার্জন করতে পারে।
তাই বলা যায়, শীর্ষস্থানে পৌঁছানোর থেকে শীর্ষস্থান ধরে রাখা সহজ।

হয়ত খুব সামান্য পরিমাণ পার্থক্য, অলিম্পিকে যা হয় কখনো ন্যানোসেকেন্ড, এই সামান্য পার্থক্যই একজনকে উইনার বানিয়ে দেয়।

অনেক মিউজিশিয়ান, অনেক অভিনেতা সারাবিশ্বে আছে কিন্তু হাতে গোনা কয়েকজনকে পুরো বিশ্বের মানুষ চিনে, পছন্দ করে।

বিখ্যাত জিনিসগুলো কি আসলেই বিখ্যাত নাকি মানুষই তাদেরকে বিখ্যাত করে তুলে ধরার ফলেই তারা বিখ্যাত!! মানুষের পজিটিভ ফিডব্যাক আর প্রচার থেকে অনেক কিছু জনপ্রিয় হয়ে যায়। যেমন, বিশ্বের বেস্ট সেলার বইগুলো বেস্ট সেলার শুনেই বেশি মানুষ কেনে।

আরেকটা জিনিস আমরা জানি ভাগ্য। কিছু মানুষ উইনার হবার ভাগ্য নিয়েই জন্মায়। আর কোন কোন বিজনেসকে উপযুক্ত সময়, উপযোগী স্থান আর ভালো যোগাযোগ সব মিলে শীর্ষস্থানে পৌঁছে দেয়।

শীর্ষস্থানীয় কোম্পানিগুলো বাজার আর পন্যের দামও নিয়ন্ত্রন করতে পারে। একটা নতুন জিনিস কেউ বাজারে আনলে প্রথম তার একছত্র আধিপত্য থাকে, সে ইচ্ছে মত দাম নির্ধারণ করতে পারে। কিন্তু যখন আরেকটা কোম্পানি এই প্রোডাক্ট আনতে সক্ষম হয়, তখন তারা আবার দাম কমিয়ে দিয়ে নিজেদের শীর্ষস্থান ধরে রাখে, মানুষের আস্থাও এদের উপরই বেশি থাকে।

গুগল তাদের একছত্র আধিপত্য বিস্তারের জন্য তার সব প্রতিযোগীদেরকে যে কোন উপায়ে দাবিয়ে রাখার চেষ্টা করে।

বড় কোম্পানিগুলো সর্বদা নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়, কিন্তু অর্থনৈতিক উন্নয়ন নতুন উদ্যোক্তা তৈরীর মাধ্যমেই হয়।

সৃজনশীল কোন নতুন উদ্যোগের আগমনে বড় কোম্পানিগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে যদি তারা বেখেয়ালি হয়,যদি তারা নতুন কিছু না আনে। গুগল প্রতিদিন তার আপডেটের কারণেই শীর্ষস্থান ধরে রাখতে পারছে যা ইয়াহু, ব্লিং পারেনি।

সুতরাং বলতে পারি “In order to win, you must first survive.”

নতুন উদ্যোক্তাদের কেউ প্রথম ধাক্কায় টিকে গেলে, বড় কোম্পানিগুলোকে কমপিট করে সারভাইব করতে পারলেই তার জয় সুনিশ্চিত। আর এর জন্য চাই প্রচন্ড আত্মবিশ্বাস, ধৈর্য, পরিশ্রম আর আপডেটেট টেকনিকাল স্কিল।


Spread the love
খাতুনে জান্নাত আশা
This is Khatun-A-Jannat Asha from Mymensingh, Bangladesh. I am entrepreneur and also a media activist. This is my personal blog website. I am an curious woman who always seek for new knowledge & love to spread it through the writing. That’s why I’ve started this blog. I’ll write here sharing about the knowledge I’ve gained in my life. And main focus of my writing is about E-commerce, Business, Education, Research, Literature, My country & its tradition.
https://khjasha.com

Leave a Reply

Top
%d bloggers like this: