You are here
Home > মোটিভেশনাল > The Art of Innovation-by Guy Kawasaki

The Art of Innovation-by Guy Kawasaki

Spread the love

A Motivational speech by Guy Kawasaki

কাওয়াসাকি হলেন আমেরিকার বিখ্যাত একজন মার্কেটিং স্পেশালিষ্ট, লেখক, এবং সিলিকন ভ্যালির একজন ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট।

কোর্সেরায় কোর্স যারা করছেন তারা অবশ্যই ওনাকে আগে থেকেই চিনে থাকবেন, কারণ আমাদের প্রফেসর সব সময় ওনার উক্তিগুলো দিয়েই বেশির ভাগ টপিক ডিফাইন করে থাকেন।


যাই হোক, উনার টেডেক্সে(Tedx) দেয়া এই স্পিচটি তে উনি যা বোঝাতে চেয়েছেন তাই আমি লিখছি।

1) Make Meaning:

শুধু অর্থ কেন্দ্রিক চিন্তা না করে অর্থবহ কিছু ভাবতে হবে যা শুধু নিজের জন্য না, পুরো পৃথিবীটাই বদলে দিতে সাহায্য করবে। কোনো একটা পরিবর্তন আনার উদ্দেশ্যেই আপনাকে উদ্যোগ নিতে হবে, আর যখনই আপনি সেই পরিবর্তন টা আনতে পারবেন তখন তার সাথে কিন্তু অর্থও উপার্জন করতে পারবেন।

কিন্তু যদি আপনার ইচ্ছাই থাকে শুধু টাকা উপার্জন, তবে হয়ত আপনি কোনো টাকাও উপার্জন করতে পারবেন না, পৃথিবীতে কোনো পরিবর্তনও আনতে পারবেন না এবং অবশ্যই পুরোপুরিই ব্যর্থ হবেন।

আপনি Apple, Google, ebay এদের দিকে তাকালেই দেখতে পাবেন তাদের উদ্দেশ্য ছিল কিছু একটার পরিবর্তন করা, তারা মানুষের ঘরে ঘরে কম্পিউটার পৌঁছে দিতে পেরেছে, পুরো পৃথিবীটাকে মানুষের হাতের মুঠোয় এনে দিতে সক্ষম হয়েছে, আমাদের জীবনযাত্রা অনেকাংশে সহজ করে দিয়েছে অনেক সমস্যার সমাধানের মাধ্যমে এবং এর মাধ্যমে তারা প্রচুর অর্থও উপার্জন করছে।
আর যদি আপনি এমন অর্থবহ কিছু করতে চান তবে আপনাকে ইনোভেটিভ ওয়েতেই আগাতে হবে।

2) Make a Mantra:

আমি কেন উদ্যোক্তা হতে চাই, আমি যে অর্থবহ সিদ্ধান্ত টা নিয়েছি সেটার ভিত্তি টা কি? আমি কি সার্ভ করতে চাইছি? কিসের মাধ্যমে পরিবর্তনটা আনতে চাইছি?


এই উত্তরগুলোই দিতে হবে খুব স্পেসিফিক ভাবে দুই, তিন বা চার শব্দের একটা মন্ত্র তৈরীর মাধ্যমে।
যেমনঃ আমার উদ্যোগের মন্ত্র বলতে পারি- “বেস্ট কোয়ালিটির দেশী প্রোডাক্ট”

3) Jump to the next curve:

আপনি কি বা কতটুকু করছেন সেটা ভাবার থেকে আপনি কি বা কতটুকু দিতে পারছেন সেটা ভাবা জরুরী। আপনি যখন কাস্টমারদের কতটুকু সার্ভ করতে পারছেন সেটা ভাববেন তখন কিন্তু আপনি সহজে সন্তুষ্ট  হতে পারবেন না, আপনার তখন চিন্তা আসবে আরও কিভাবে সহজ করা যায়, আর কিভাবে সার্ভিস দিলে ভবিষ্যতের সব অবসটাকল গুলোকেও এভোয়েড করা যাবে।

ভবিষ্যতেও বহুবছর ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখতে চাইলে অবশ্যই এতে এমন ইনোভেশন আনতে হবে যার কারনেই এটা টিকে থাকবে।

4) Roll the DICEE:

গ্রেট ইনোভেশন এর এই কোয়ালিটিগুলো থাকবে।
Great innovation is deep-
অনেক ফিচার, অনেক ফাংশন থাকবে, এক্সট্রা সুবিধা দিবে।
• Great products are intelligent– কাস্টমারের পেইন বা প্রব্লেমটা বুঝে সেটার সঠিক সমাধান দিতে হবে।
• Great products are complete-
যেমনঃ আমাদের মোবাইল ফোন প্রথমে শুধু কথা বলার প্রয়োজন মেটাতে আসলেও এটা এখন আমাদের সব ধরনের প্রয়োজন মেটেচ্ছে, ছোট্ট একটা কম্পিউটারের কাজ করে দিচ্ছে।
• Great products are also Empowering-
প্রোডাক্ট এমন হতে হবে যা কাস্টমারদের আরও ক্রিয়েটিভ, আরও প্রোডাক্টিভ করে তুলবে।

5) Don’t Worry, Be crappy:

প্রত্যেকটা নতুন প্রোডাক্ট প্রথম উদ্ভাবনের সময়ই কিন্তু এটা পারফেক্ট হয়ে যাবেনা, অনেক কম সুযোগ সুবিধা হয়ত এটাতে থাকবে,কিন্তু এটা পৌঁছে দিয়ে আগে এর ব্যবহারে মানুষ কে অভ্যস্ত করতে হবে এবং ধীরে ধীরে এটাকে আপডেট করতে হবে।

6) Let 100 flowers blossom:

কাস্টমারদের মতো করে ভাবতে হবে, কাস্টমাররা কি চাইছে তা বুঝতে হবে। হয়ত কাস্টমার ফিডব্যাক থেকে এমন কোনো আইডিয়া বের হয়ে আসবে যা কোনোদিন ভাবাই হয় নি।

7) Polarize People:

যত ভালোই হোক না কেনো একটা প্রোডাক্ট বা সার্ভিস যে সবাইকে খুশি করতে পারবে তা কিন্তু নয়। সবাইকে খুশি করার চিন্তা করলে ঠিক কাউকেই খুশি করা যাবে না। আমার মতে এজন্যই টার্গেট কাস্টমার ঠিক করতে বলা হয়।

8) Churn Baby, Churn:

কোনো নতুন পন্য উদ্ভাবনের সময় সবাই বাঁধা দেয়ারই চেষ্টা করে যে, এটা কেনো করছ, এর তো দরকার নেই!! তবে সবাইকে তখন এড়িয়ে চলেই নিজের উদ্ভাবন চালিয়ে যেতে হবে এবং ফাইনাললি সেটা বাজারে আনার পর ধীরে ধীরে সেটাকে বিভিন্ন ভার্শনে আপডেট করতে থাকতে হবে প্রতিনিয়ত।

9) Niche Thyself:

প্রোডাক্টে অবশ্যই ইউনিক কিছু থাকতে হবে, এবং কাস্টমারদের বোঝাতে হবে যে এটা ইউনিক এবং অন্য প্রোডাক্ট থেকে আলাদা, তাই এটার মূল্য বেশি।

10) Perfect your Pitch:

প্রোডাক্ট প্রেজেন্টেশনের শুরুতেই কাস্টমারদের মনোযোগ আকর্ষন করে নেয়ার মতো কিছু বলতে হবে৷ গল্পের মতো করে বলে কাস্টমারের মনে প্রোডাক্টের ছবি একে দিতে হবে।

11) 10, 20, 30 rule of Presentation:

প্রোডাক্ট প্রেজেন্টেশন হতে হবে ১০ স্লাইডের, যা ২০ মিনিটে বলতে হবে এবং ফন্ট সাইজ রাখতে হবে ৩০ পয়েন্টস।

12) Don’t Let the Bozos Grind You Down:

আপনি যখন নতুন কিছু উদ্ভাবনের কথা ভাববেন, এটা কেউ পছন্দ করবে, কেউ করবে না। তাই সবার কথা শোনা যাবে না। ভেবে চিন্তে উপযুক্ত সিদ্ধান্তটাই নিজেকে গ্রহন করতে হবে। কাউকে থামিয়ে দেয়ার সুযোগটা করে দেয়া যাবে না।


Spread the love
খাতুনে জান্নাত আশা
This is Khatun-A-Jannat Asha from Mymensingh, Bangladesh. I am entrepreneur and also a media activist. This is my personal blog website. I am an curious woman who always seek for new knowledge & love to spread it through the writing. That’s why I’ve started this blog. I’ll write here sharing about the knowledge I’ve gained in my life. And main focus of my writing is about E-commerce, Business, Education, Research, Literature, My country & its tradition.
https://khjasha.com

Leave a Reply

Top
%d bloggers like this: